img-2

Bangla24x7 Desk : নিয়োগ দুর্নীতি ইস্যুতে তোলপাড় রাজ্য রাজনীতি। হাজারও বিতর্কের মাঝে ফের বিপুল নিয়োগের কথা জানালেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। জানালেন, ৮৯ হাজার নতুন পদে শিক্ষক নিয়োগ করা হবে। পাশাপাশি আগামী ১৫ দিনের মধ্যে রাজ্যের ৩০ হাজার যুবক-যুবতীর হাতে নিয়োগপত্র তুলে দেওয়া হবে জানিয়েছেন তিনি।

সোমবার বিশ্ব বাংলা মেলা প্রাঙ্গণে শিক্ষারত্ন প্রদানের অনুষ্ঠানে যোগ দেন মুখ্যমন্ত্রী। সেখান থেকেই নয়া শিক্ষক নিয়োগের বিষয়টি তুলে ধরেন। মুখ্যমন্ত্রীর দেওয়া পরিসংখ্যান অনুযায়ী , ইতিমধ্যে ২ লক্ষ ৬৩ হাজার শিক্ষক এবং অশিক্ষক পদে নিয়োগ হয়েছে রাজ্যে। আরও বহু পদে এতদিনে নিয়োগ সাড়া হত বলেও জানালেন তিনি।

img-3

শুধু শিক্ষক পদে নয়, নিয়োগ হবে দক্ষতাভিত্তিক পদেও। রাজ্যের তরফে বিভিন্ন ক্ষেত্রে প্রশিক্ষণ দিয়ে ৩০ হাজার যুবক-যুবতীকে চাকরি দেওয়া হবে। আগামী ১৫ দিনের মধ্যে তাঁদের হাতে নিয়োগপত্র তুলে দেওয়া হবে বলে ঘোষণা করলেন মুখ্যমন্ত্রী। বহু যুবক-যুবতীর অভিযোগ, যোগ্যতা থাকা সত্ত্বেও তাঁরা চাকরি পাননি। এমনকী, রাস্তায় নেমে আন্দোলন করছেন তাঁরা।

মমতা জানান, “আমরা কারও চাকরি খাইনি।” শিক্ষক নিয়োগ নিয়ে তৎকালীন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের সঙ্গে কথা বলেছিলেন বলেও জানান মমতা। একের পর এক জনস্বার্থ মামলার জন্য তা সম্ভব হচ্ছে না বলেও আক্ষেপ করেন মুথ্যমন্ত্রী। তাঁর কথায়, “কিছু কিছু লোক আছে যারা নিজেও খায় না। অন্যকেও খেতে দেয় না। যা-ই করতে যাই একটা করে মামলা ঠুকে দেয়।” মমতার কটাক্ষ, “একটা করে পিল খেয়ে নেয়।” সেই সঙ্গে নাম না করে আইনজীবী বিকাশরঞ্জন ভট্টাচার্যের সমালোচনা করেন তিনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *