img-2

Bangla24x7 Desk :  স্বাস্থ্যসাথী প্রত্যাখ্যান-অপব্যবহার থেকে রোগী রেফারের সমস্যা নিয়ে বেজায় ক্ষুব্ধ তিনি। মুখ্যমন্ত্রীর প্রশ্ন, ‘সবকিছু আমাকে বলে দিতে হবে? নিজের কাজ নিজেকে বুঝে নিতে হবে। কোনও লবিবাজি চলবে না।’ নবান্নর বৈঠক থেকে স্বাস্থ্যসচিব নারায়ণস্বরূপ নিগমকে কড়া হওয়ার পরামর্শ দিলেন তিনি। মাঝেমধ্যেই হাসপাতালে সারপ্রাইজ ভিজিট করুন, নির্দেশ মুখ্যমন্ত্রীর।

মুখ্যমন্ত্রীর সাফ বার্তা, রেফার করলে রোগীর মৃত্যু হলে, যে রেফার করেছেন দায়িত্ব তাঁর। পাশাপাশি স্বাস্থ্য কমিশনের সাহায্যে রেফার নীতি তৈরির পক্ষেও সওয়াল করেন মমতা। এদিন মুখ্যমন্ত্রীর প্রশ্নের জবাবে নারায়ণস্বরূপ নিগম জানান, রেফার রোগ আগের চেয়ে অনেকটাই কমেছে রাজ্য। ৮ শতাংশ থেকে কমে হয়েছে ৪ শতাংশ। সমস্যা আরও কমাতে দ্রুত পদক্ষেপ করা হচ্ছে বলে জানান তিনি।

img-3

জেলা থেকে ক্রমাগত রোগী রেফার নিয়ে ক্ষুব্ধ মুখ্যমন্ত্রী। জেলা হাসপাতালের উদ্দেশে তাঁর প্রশ্ন, “রেফার করা আপনারা কবে বন্ধ করবেন? প্রসূতিদেরও রেফার করা হচ্ছে।” প্রসববেদনা নিয়ে ৩-৪ ঘণ্টার রাস্তা পার করার জেরে বহু প্রসূতির মৃত্যু হচ্ছে বলেও দাবি মমতার। এই ‘রোগ’ সারানোর দাওয়াই হিসেবে স্বাস্থ্যসচিবকে কড়া ব্যবস্থা নেওয়ারও নির্দেশ দিয়েছেন তিনি। শুধু রেফার রোগ নয়, স্বাস্থ্যসাথী কার্ড ফেরানো ও অপব্যবহার নিয়েও অসন্তুষ্ট মুখ্যমন্ত্রী। স্বাস্থ্যসাথী কার্ড ফেরানো নিয়ে আগেও বেসরকারি হাসপাতালগুলিকে সতর্ক করেছিলেন তিনি।

স্বাস্থ্যসাথী কার্ড ফেরালে বেসরকারি হাসপাতালের লাইসেন্স বাতিলের কথাও বলেছিলেন তিনি। এদিনও সেকথা মনে করিয়ে দেন। এই কার্ড অপব্যবহারের অভিযোগ উঠেছে। এসমস্ত সমস্যা সমাধানের জন্য প্রতি মাসে জেলাশাসকদের বৈঠকে বসার নির্দেশ দিলেন মুখ্যমন্ত্রী। যারা কার্ডের অপব্যবহার করছেন তাদের বিরুদ্ধেও কড়া ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *