Bangla24x7 Desk : ছিলেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী , অমিত শাহের ডেপুটি – সেখান থেকে কেন্দ্রীয় মন্ত্রক পাওয়া তো দূরঅস্ত , নির্বাচনে কোচবিহারে নিজে জিততেই ব্যর্থ নিশীথ প্রামাণিক। নিশীথের পরাজয় , চমকে উঠেছে খোদ বিজেপি নেতৃত্ব। প্রাক্তন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী নিশীথ প্রামাণিককে আকাশের চাঁদ থেকে পায়ের তলার মাটি ধরিয়েছেন তিনি। মনোনয়ন পত্র জমা দেওয়ার দিনই বলেছিলেন, ‘যো জিতা ওহি সিকন্দর।’ নিশীথকে হারিয়ে বুঝিয়ে দিলেন, তিনিই ‘সিকন্দর’। নিশীথকে হারিয়ে চর্চার আলোকবৃত্তে প্রাক্তন বাম নেতা জগদীশ চন্দ্র বর্মা বসুনিয়া। ৩৯ হাজারের বেশি ভোটে পরাজিত হয়ে মাটিতে মুখ থুবড়ে পড়েছেন শাহের প্রাক্তন ডেপুটি। তবে নিশীথকে হারানো জগদীশ চন্দ্র বর্মা বসুনিয়ার রাজনৈতিক উত্থান বেশ চমকপ্রদ।  তিনি যেহেতু বাম রাজনীতি থেকে আসা, তাঁর দাবি ছিল, ন’এর দশকে তিনি যখন বামফ্রন্ট করতেন, সেই সময় কীভাবে নেতাদের মধ্যে চাকরি ভাগাভাগি হতো তা তিনি নিজের চোখে দেখেছেন। তিনিও দাবি করেন, সে সময় চাকরি চিরকুটেই হত।

 

কোচবিহারকে এক সময় ফরওয়ার্ড ব্লকের গড় বলা হত। তিন দশকের বেশি সময় তা বামেদের হাতে ছিল। সেখানেই ফরওয়ার্ড ব্লক করতেন বসুনিয়া। তবে রাজ্যে পালাবদলের পর তৃণমূলে যোগ দেন দাপুটে এই বাম নেতা। ২০২১ সালে ১১৭৯০৮ ভোটে জিতে সিতাইয়ের তৃণমূল বিধায়ক পদে ছিলেন জগদীশ বসুনিয়া। লোকসভায় আবারো দলীয় বিধায়কের উপর ভরসা রাখেন তৃণমূল সুপ্রিমো। বিজেপি দাপটের মধ্যেও কোচবিহার নেত্রীর হাতে তুলে দিলেন বসুনিয়া। নিয়োগ দুর্নীতি নিয়ে গত বছর রাজ্য রাজ্যনীতি যখন উত্তাল, সেই সময় পাল্টা শাসকরা বিঁধতে শুরু করে বামেদের। বাম আমলে চিরকুটে চাকরি হতে বলে অভিযোগ তোলে তৃণমূল। সে সময় জগদীশ বসুনিয়াও সরব হয়েছিলেন। কত ভোট পেলেন জগদীশ বর্মা বসুনিয়া ? নির্বাচন কমিশন থেকে পাওয়া তথ্য অনুযায়ী, জগদীশ বর্মা বসুনিয়ার প্রাপ্ত ভোট ৭৮৮৩৭৫। বিজেপির প্রার্থী নিশীথ প্রামাণিক পেয়েছেন ৭৪৯১২৫ ভোট। অর্থাৎ ৩৯২৫০ ভোটে নিশীথকে হারিয়েছেন তিনি। কংগ্রেসের পিয়া রায় চৌধুরী পান ১০৬৭৯ ভোট। এহেন বসুনিয়ার হাত ধরে এবার উত্তরবঙ্গে ঘাসফুল ফুটল। তাঁর হাত ধরেই উত্তরবঙ্গে শূন্যের গিটঁ কাটিয়ে খাতা খুলল তৃণমূল।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *