img-2

Bangla24x7 Desk : ২৩০ মিটার লম্বা ঐতিহাসিক ব্রিজ ভেঙে মৃত্যু হয়েছে ১৪১ জনের। অথচ তার মেরামত হয়েছিল গত সাত মাস ধরে। তাহলে কী দুর্নীতি? আসন্ন গুজরাট বিধানসভা ভোটের আগে বিরাট চাপে শাসক দল বিজেপি। কারণ গাফিলতির একাধিক অভিযোগ উঠছে। প্রথমত, ফিট সার্টিফিকেট ছাড়া দিন পাঁচেক আগে নতুন করে খুলে দেওয়া হয় ব্রিজটিকে। বিরোধীদের বক্তব্য, ভোটের লোভে বিপদের কথা না ভেবে সেতু খুলে দেওয়া হয়।

img-3

জানা যাচ্ছে, ওরেভা নামের যে সংস্থাকে সেতু মেরামতির দায়িত্ব দেওয়া হয়েছিল, তাদের এমন কাজের অভিজ্ঞতা ছিল না। ওরেভা গ্রুপের জনপ্রিয় ব্র্যান্ড অজন্তা ও অরপ্যাট। এদের ঘড়ি, সিএফএল বাল্ব, ক্যালকুলেটর ইত্যাদি গোটা দেশে মেলে। পাঁচ দশক পুরনো নামী সংস্থাটির ব্যবসার পরিমাণ ৮০০ কোটি টাকা। যদিও মোরবি ব্রিজ বিপর্যয়ে গাফিলতির অভিযোগ উড়িয়ে দিয়েছেন বিজেপি নেতা কপিল মিশ্র। বরং ব্রিজ বিপর্যয়ের নেপথ্যে ষড়যন্ত্রের গন্ধ পাচ্ছেন তিনি।

উল্লেখ্য, স্থানীয়রা মচ্ছু নদীর উপরের কেবল ব্রিজটিকে বলত ‘ঝুলতা পুল’। মেরামতির প্রয়োজনে সাত মাস আগে তা বন্ধ করে দেওয়া হয়েছিল। মোরবি পুরসভা সেতু মেরামতির বরাত দেয় সংস্থাকে। এরপর পাঁচদিন আগে গত ২৬ অক্টোবর গুজরাটি নববর্ষে ‘ঝুলতা পুল’ খুলে দেওয়া হয়। ওরেভা কোম্পানির ওয়েবসাইটে গিয়ে দেখা যাচ্ছে তাদের হাজারটা ব্যবসা থাকলেও নির্মাণ সংক্রান্ত কোনও বিভাগ নেই। এমন কোম্পানিকে বরাত দিল কেন মোরবি পুরসভা ? উঠছে প্রশ্ন।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *