Bangla24x7 Desk : মাসির বাড়ি গুণ্ডিচায়  রথ পৌঁছনোর পর ‘পাহণ্ডি’ আচার পালন করা হচ্ছিল। সেবায়েতরা একে একে জগন্নাথ দেব, বলরাম দেব ও সুভদ্রা দেবীর মূর্তি দোলাতে দোলাতে মন্দিরের ভিতরে নিয়ে যাচ্ছিলেন। সেই সময়ই পিছলে পড়ে যায় বলভদ্রের মূর্তি।  রথ থেকে নামানোর সময় পড়ে গেল বলভদ্রের মূর্তি। তাতে চাপা পড়ে আহত হলেন সাত সেবায়েত। তাঁদের ভর্তি করা হয়েছে পুরী হাসপাতালে। এদিকে, বলরাম দেবের মূর্তি পড়ে যাওয়ায় ভীত ভক্তরা। ইতিহাসে প্রথমবার এমন ঘটনা ঘটল।

স্থানীয় সূত্রের খবর, মঙ্গলবার সন্ধ্যায় গুন্ডিচা মন্দিরে রীতি মেনে জগন্নাথ, বলভন্দ্র এবং সুভদ্রার ‘পাহান্ডি’ শুরু হয়। এই ‘পাহান্ডি’র মাধ্যমেই মূর্তিগুলিকে রথ থেকে নামিয়ে নিজ নিজ মণ্ডপে প্রতিষ্ঠা করা হয়। বলভদ্রের মূর্তিও সেইমতো মণ্ডপে প্রতিষ্ঠা করার জন্য নিয়ে যাচ্ছিলেন সেবায়েতরা। সেসময় আচমকা সামনের দিকে ঝুঁকে পড়ে মূর্তিটি। সেবায়েতরা নিয়ন্ত্রণ হারান। মূর্তির নিচে চাপা পড়ে আহত হন অন্তত সাত সেবায়েত। সঙ্গে সঙ্গে ছুটে যান বাকি সেবায়েতরা। আহতদের উদ্ধার করে পুরীর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এমনিতে রথযাত্রার সঙ্গে যুক্ত সেবায়েতরা দীর্ঘদিনের অভিজ্ঞ। বংশপরম্পরায় এই কাজ করে থাকেন তাঁরা। অথচ, রথ থেকে মূর্তি নামাতে গিয়ে এভাবে দুর্ঘটনার মুখে পড়তে হলে। এটা কোনও অশনিসংকেত নয় তো, চিন্তা সেবায়েতদের মধ্যেও।

পুরী প্রশাসন সূত্রে খবর, অতিরিক্ত বৃষ্টির কারণে বলরাম দেবের রথ ‘তালধ্বজে’র বিভিন্ন অংশ পিছল হয়ে গিয়েছিল। রথ থেকে যখন বলভদ্রের মূর্তি নিয়ে গুন্ডিচা মন্দিরে তোলা হচ্ছিল, তখনই আচমকা সেবায়েতরা পিছলে পড়ে যান রথের উপর থেকেই। তাঁদের হাতেই ধরা ছিল বলভদ্রের মূর্তিটি। সেটিকে নিয়েই রথের উপর থেকে নিচে পড়েন তারা। দুর্ঘটনার খবর শুনেই উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন ওড়িশার মুখ্যমন্ত্রী মোহন চরণ মাঝি। ওড়িশার আইনমন্ত্রী পার্থিরাজ হরিচন্দনকে অবিলম্বে পুরী যাওয়ার নির্দেশ দেন তিনি। আহত সেবায়েতদের দ্রুত সুস্থতা কামনা করেছেন তিনি।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *