Bangla24x7 Desk : “ডায়মন্ড হারবারে দাঁড়ালে অভিষেককে হারাতাম” – ব্যর্থতার দায় আইএসএফএর বিরুদ্ধে বিস্ফোরক নওশাদ। নির্বাচনের সময়ে রুটিন প্রচারে গিয়েই কার্যত দায়সারা কাজ সেরেছেন রাজ্যের একমাত্র আইএসএফ বিধায়ক নওশাদ সিদ্দিকি। কিন্তু ভোট পরবর্তী সময়ে দাবি করলেন, তিনি ডায়মন্ড হারবারের প্রার্থী হলে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে হারাতেন, প্রাক্তন করে দিতেন! এনিয়ে অবশ্য দলকেই দুষলেন নওশাদ। দল অনুমোদন করেনি বলে তিনি লোকসভার লড়াইয়ে ছিলেন না, এমনই বললেন। এই অবস্থায় দাঁড়িয়ে নওশাদেরদাবি খারিজ করছে সংখ্যাতত্বই। তাঁর আরও দাবি, ”আমার ইচ্ছা ছিল, ডায়মন্ড হারবারে দাঁড়ানোর। ওখানে প্রার্থী অবশ্যই অভিষেকবাবুকে হারাতাম, তাঁকে প্রাক্তন করে দিতাম। কিন্তু দল আমায় অনুমোদন দেয়নি। তাই আমি দাঁড়াইনি। তাছাড়া ডায়মন্ড হারবারে কীভাবে ভোট হয়েছে, সবাই জানে।”

এই অবস্থায় দাঁড়িয়ে নওশাদের দাবি খারিজ করছে সংখ্যাতত্বই। তাঁর আরও দাবি, ”আমার ইচ্ছা ছিল, ডায়মন্ড হারবারে দাঁড়ানোর। ওখানে প্রার্থী অবশ্যই অভিষেকবাবুকে হারাতাম, তাঁকে প্রাক্তন করে দিতাম। কিন্তু দল আমায় অনুমোদন দেয়নি। তাই আমি দাঁড়াইনি। তাছাড়া ডায়মন্ড হারবারে কীভাবে ভোট হয়েছে, সবাই জানে।” ভাঙড়  বিধানসভা কেন্দ্র থেকে ২০২১-এর বিধানসভা ভোটে সংযুক্ত মোর্চা জোটের প্রার্থী হিসেবে জিতে নজির গড়েছিলেন নওশাদ সিদ্দিকি। আর সেই ভাঙড়েই চব্বিশের লোকসভা ভোটে অন্তত ৪০ হাজার ভোটে পিছিয়ে আইএসএফ। যদিও নওশাদের দাবি, ঠিকমতো ভোট হলে এই কেন্দ্রে ৫০ হাজারের বেশি লিড পেত তাঁর দল। উল্লেখ্য ভাঙড় কেন্দ্রটি যাদবপুর বিধানসভার অন্তর্গত। 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *