Bangla24x7 Desk : প্রবল গরমে পুড়ছে গোটা দেশ। কোথাও কোথাও তাপমাত্রা ৫০ ডিগ্রিও ছাড়িয়ে যাচ্ছে। গ্রীষ্মের এই ঝালাস থেকে মুক্তি পেতে এয়ার কন্ডিশন নিরাপদ আশ্রয়। শহরাঞ্চলে এখন অধিকাংশ বাড়িতেই ঢুকে পড়েছে ঘর ঠান্ডার করার এই ইলেক্ট্রনিক্স আইটেম। গরম সহ্যের ক্ষমতা যাঁদের কম, তাঁরা তো রাতদিন এসি চালিয়ে রাখেন। সাবধান ! এসি ব্লাস্ট করে ঘটে যেতে পারে ভয়ঙ্কর বিপর্যয়। 

  • এয়ার কন্ডিশনারের এয়ার ফিল্টার নিয়মিত পরিবর্তন করুন। নোমরা হয়ে যাওয়া এয়ার ফিল্টার এয়ার ফ্লোতে বাধার সৃষ্টি করে। তাই তা নিয়ম করে পরিষ্কার করা উচিত।
  • এর পাশাপাশি এসি-র আউটডোর ইউনিটও নির্দিষ্ট দিন অন্তর পরিষ্কার করা উচিত। যাতে ময়লা না জমতে পারে। এসি-র আশপাশে কিছু রাখবেন না।
  • এসি-র এয়ারফ্লো যাতে বাধাহীন ভাবে হতে পারে, সেদিকে নজর রাখা উচিত।
  • এসির প্ল্যাগের সঙ্গে কখনও এক্সটেনশন কর্ড ব্যবহার করবেন না। এয়ার কন্ডিশনারে লোড থাকে অনেক বেশি। এক্সটেনশন কর্ড সব সময় এই লোড বহনে সক্ষম হয় না।
  • এর পাশাপাশি বছরে অন্তত দুবার এসি সার্ভিসিং করিয়ে নিতে পারেন। টেকশিয়ানের হাতে আপনার এসি কোনও সমস্যা থাকলে তা দূর হয়ে যাবে।

এয়ার কন্ডিশনার ব্লাস্টের ঘটনা একাধিক কারণে ঘটতে পারে। বিশেষজ্ঞরা জানাচ্ছেন, মেকানিক্যাল ফেলিওর বা ইলেক্ট্রিক্যাল ফেলিওরের কারণেও এসি ব্লাস্ট হয়। এর পাশাপাশি একাধিক ফ্যাক্টর রয়েছ এই ঘটনার। কারণ যাই হোক, বাড়িতে এসি থাকলে এবং তা নিয়মিত চালালে। এসি-র যত্ন নিতে হবে। এর জন্য এসি সম্পর্কিত কিছু কাজ করতে হবে। তাহলেও এ রকম বিপদ ঘটনার আশঙ্কা অনেকটাই কমে যাবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *