Bangla24x7 Desk : বছর তিনেক আগে কঙ্গনা রানাউত সেপ্রসঙ্গে বলেছিলেন, “কৃষক আন্দোলনের জন্য পাঞ্জাবের মহিলাদের ১০০ টাকায় কেনা হয়েছে।” সেই রাগের বশেই চণ্ডীগড় বিমানবন্দরে কর্মরত মহিলা জওয়ান বৃহস্পতিবার কঙ্গনা রানাউতকে সামনে থেকে দেখে ক্ষোভ নিয়ন্ত্রণে রাখতে না পেরে সপাটে চড় কষান। তৎক্ষণাৎ স্থানীয় থানায় অভিযোগ দায়ের হয় কুলবিন্দরের বিরুদ্ধে। এদিকে কর্মস্থলেও তাঁকে বরখাস্ত করা হয়। সূত্রের খবর, এবার নবনির্বাচিত তারকা সাংসদকে চড় মারার মাশুল হিসেবে গ্রেপ্তার হলেন কুলবিন্দর কৌর। পাঞ্জাবের কৃষক পরিবারের মেয়ে কুলবিন্দর কৌর। তবে পেশায় তিনি জওয়ান। যাঁরা মা নিজে কৃষক আন্দোলনে শামিল হয়ে দিল্লির রাজপথে বসেছিলেন তিন কৃষ্টি বিল প্রত্যাহারের দাবি নিয়ে। 

শুধু তাই নয়, ভাবী সাংসদকে শারীরিক হেনস্তা করার অভিযোগে এফআইআরও দায়ের হয়েছে পাঞ্জাবি ওই মহিলার বিরুদ্ধে। খোদ মহিলা কমিশনের প্রধান রেখা শর্মার হস্তক্ষেপে এই কড়া পদক্ষেপ করা হয়েছে। যার জেরে রেখাকেও বিস্তর সমালোচনার মুখে পড়তে হচ্ছে বর্তমানে। এবার কুলবিন্দরের গ্রেপ্তারির খবর প্রকাস্যে আসতেই নেটপাড়ায় নিন্দার ঝড়! সিংহভাগ নেটবাসিন্দাই কুলবিন্দরের হয়ে সুর চড়িয়েছেন। জানা গিয়েছে, কঙ্গনাকে চড় মারা ওই কর্তব্যরত জওয়ান আদতে পাঞ্জাবের সুলতানপুর লোধির বাসিন্দা। গত ২ বছর ধরে চণ্ডীগড় বিমানবন্দরে কাজ করছেন। আরেক CISF জওয়ানের সঙ্গে সুখের ঘরকন্নাও রয়েছে তাঁর। বাড়িতে দুই সন্তানও রয়েছে কুলবিন্দরের। কৃষক আন্দোলনকে ‘খলিস্তানি’ বলে আক্রমণ করার জেরেই কঙ্গনা রানাউতকে তিনি চড় মেরেছেন বলে জানিয়েছেন।

বোনের সমর্থনে মুখ খুলেছেন তাঁর ভাই শের সিং মহিবালও। তাঁর কথায়, “কঙ্গনার পার্স চেকিংয়ের সময়ই ঘটনাটা ঘটেছে বলে জানতে পারলাম। উনি বলেছিলেন, পাঞ্জাবের আন্দোলনরত মহিলারা ১০০ টাকায় বিক্রি হয়ে গিয়েছে। বাকবিতণ্ডার মাঝে মাথা ঠান্ডা না রাখতে পেরেই হয়তো আমার বোন চড় কষিয়েছে।” বৃহস্পতিবার দিল্লি যাওয়ার পথেই চণ্ডীগড়ে এই অনভিপ্রেত ঘটনা ঘটে। এরপরই ভিডিও বার্তায় কঙ্গনা রানাউত বলেন, “আমি উদ্বিগ্ন পাঞ্জাবে বাড়তে থাকা সন্ত্রাস নিয়ে। কী করে এদের সামলাব আমরা ?” 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *