img-2

Bangla24x7 Desk : বঙ্গ বিজেপির মধ্যে শোরগোল। দাবি মতো ৭ লক্ষ টাকা দিতে না পারায় দলের এক মন্ডল সভাপতিকে পদ থেকে সরিয়ে দেওয়ার অভিযোগ। উত্তর কলকাতা শহরতলি সাংগঠনিক জেলার ৫ নম্বর মন্ডল কমিটির সদ্য অপসারিত সভাপতি উত্তম সাউয়ের বিস্ফোরক এই অভিযোগকে ঘিরে চাঞ্চল্য গেরুয়া শিবিরে।

দলের শীর্ষ নেতৃত্বকে লেখা চিঠিতে উত্তম অভিযোগের আঙুল তুলেছে কলকাতা উত্তর শহরতলি জেলা বিজেপির সভাপতি অরিজিৎ বক্সী ও জেলার এক নেত্রীর বিরুদ্ধে। তাঁর অভিযোগ, ওই জেলা নেতারা রাজ্য বিজেপির অন্যতম সাধারণ সম্পাদক জগন্নাথ চট্টোপাধ্যায়ের নাম নিয়েছে। জগন্নাথ নাকি এ ব্যাপারে জেলা সভাপতিকে চাপ দিয়েছিলেন। এই অভিযোগপত্র রাজ্য সভাপতি সুকান্ত মজুমদার ও রাজ্য সাধারণ সম্পাদক (সংগঠন) অমিতাভ চক্রবর্তীকে দিয়েছেন অপসারিত ওই মন্ডল সভাপতি। বিষয়টি প্রকাশ্যে আসতেই মঙ্গলবার বিজেপির রাজ্য দপ্তরে ডেকে পাঠানো হয় উত্তম সাউকে।

img-3

বিজেপির এই নেতার অভিযোগ, নেতাদের দাবি মতো টাকা দিতে না পারায় আমায় অন্যায়ভাবে অপসারণ করা হয়েছে। একইসঙ্গে তাঁর প্রশ্ন, দলের প্রতি আনুগত্য দেখাতে গেলে আমার কাজ বড়, নাকি টাকা ? আমার জেলা সভাপতি ও জেলা নেত্রী রাজ্য সাধারণ সম্পাদক জগন্নাথ চট্টোপাধ্যায়ের নাম নিয়েছিলেন। তাই আমি চিঠিতে ওরা বলেছে বলে সেই বিষয়টি উল্লেখ করেছি। উত্তমের সঙ্গে কথা বলেন দলের দুই রাজ্য সংগঠন সম্পাদক অমিতাভ চক্রবর্তী ও সতীশ ধনদ। উত্তম সাউ। বলেন, “আমি জেলা সভাপতি অরিজিৎ বক্সী ও জেলার এক সাধারণ সম্পাদকের বিরুদ্ধে চিঠি দিয়েছিলাম। তারা বলেছিল মন্ডল সভাপতির পদ রাখতে গেলে ৭ লক্ষ টাকা দিতে হবে। আমি না পারায় ৫ ফেব্রুয়ারি জেলার কার্যকারিণী বৈঠকের দিন আমায় মন্ডল সভাপতির পদ থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়।”

কলকাতা উত্তর শহরতলি জেলা বিজেপির সভাপতি অরিজিৎ বক্সী জানান, “এই বিষয়ে কিছু জানা নেই। হতে পারে প্ররোচনায় পা দিয়েছেন। চিঠি যদি দিয়ে থাকেন তার যা দলীয় প্রক্রিয়া হওয়ার কথা হবে।” অপসারিত মন্ডল সভাপতির অভিযোগ, “এখন অনেকে দলের আদর্শকে নষ্ট করছে। পার্টির সাংগঠনিক শক্তি নষ্ট হয়েছে। জেলা পার্টিতে অনৈতিক কাজ চলছে।”  মন্ডল সভাপতি সরানো নিয়ে ওঠা আর্থিক অভিযোগ প্রকাশ্যে আসায় নতুন করে অস্বস্তিতে বিজেপির শীর্ষ নেতৃত্ব।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *