img-2

Bangla24x7 Desk : প্রার্থী তালিকা প্রকাশ হতেই গুজরাট বিজেপির অন্দরের ক্ষোভ কার্যত বিদ্রোহে পরিণত হয়েছে। টিকিট না পেয়ে নির্দল প্রার্থী হয়ে দাঁড়াচ্ছেন একাধিক প্রাক্তন বিধায়ক। বিদ্রোহ সামাল দিতে সক্রিয় হতে হয়েছে অমিত শাহ ও জে পি নাড্ডাদের । আমেদাবাদ ছুটে যেতে হচ্ছে গেরুয়া শিবিরের হেভিওয়েট নেতাদের। মূলত নতুন মুখ, দলবদল করে আসা কংগ্রেস ও নির্দলদের প্রার্থী করতে গিয়ে ৩৮ জন বিধায়ককে বাদ দেন মোদি-শাহরা। তাতেই বিপত্তি। বিদ্রোহ সামাল দিতে না পারলে এর প্রতিফলন ভোটবাক্সে পড়া নিশ্চিত।

img-3

ভদোদরার ছ’বারের বিধায়ক মধু শ্রীবাস্তবকে এবার টিকিট দেয়নি পদ্মশিবির। তালিকা প্রকাশ হতেই নির্দল হয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন প্রবীণ বিধায়ক। পরিস্থিতি বেগতিক বুঝে শাহর দূত হয়ে ভদোদরা যান কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী হর্ষ সাংভি। দলের রাজ্য কার্যালয়ের সামনে তুমুল বিক্ষোভ দেখান শ্রীবাস্তব ও অনুগামীরা। রাজ্য দফতরের সামনে পুলিশ পিকেট বসাতে হয়। বিক্ষুব্ধ প্রাক্তন বিধায়ক জানান, কর্মী-সমর্থকরা তাঁকে নির্দল প্রার্থী হয়ে লড়তে বলেছেন। তাঁদের দাবিকে গুরুত্ব দিতেই তিনি লড়বেন।

প্রাক্তন বিধায়ক ও রাজ্যে পরিচিত আদিবাসী মুখ হর্ষদ ভাসাভাকে প্রার্থী করেন গেরুয়া শিবির। দু’দিন আগে ক্ষোভের কথা রাজ্য দফতরে জানিয়েছিলেন। শনিবার সমর্থকদের সঙ্গে নিয়ে তাঁর পুরনো কেন্দ্র নর্মদা জেলার নন্দোদ আসনে মনোনয়ন জমা দেন। ভাসাভা বর্তমানে রাজ্য বিজেপির তফসিলি উপজাতি মোর্চার সভাপতি। টানা দশ বছর রাজপিপলার বিধায়ক ছিলেন। তাঁকে প্রার্থী না করায় নন্দোদ ও রাজপিপলা দু’টি আসনেই বিজেপিকে বেগ পেতে হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *