img-2

Bangla24x7 Desk : ‘পুরাতনই ভিত্তি, নতুনই ভবিষ্যৎ।’ এবার কলকাতায় নতুন পোস্টার পড়ল তৃণমূলের। একসঙ্গে রয়েছে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় ও মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ছবি। সঙ্গে লেখা, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নেতৃত্বে, অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের সেনাপতিত্বে তৃণমূল কংগ্রেস ছিল, আছে, থাকবে। তৃণমূল সম্পর্কিত নতুন হোর্ডিং নিয়ে জল্পনা তুঙ্গে। দিন কয়েক আগেই যেমন জল্পনা তৈরি করেছিল আরও একটি হোর্ডিং। যাতে লেখা ছিল— ‘আগামী ছয় মাসের মধ্যে সামনে আসবে নতুন তৃণমূল।’ দক্ষিণের পরে উত্তর কলকাতা।

ব্যানার সরাসরি তৃণমূলের পক্ষে নয়, তবে তৃণমূল প্রসঙ্গেই। দক্ষিণের হোর্ডিংয়ে ছবি ছিল শুধুই দলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের নাম। আর উত্তরের ছবিতে অভিষেকের পাশাপাশি রয়েছেন দলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও। দক্ষিণের হোর্ডিংয়ে ছিল ‘নতুন’ তৃণমূল গড়ার ডাক। আর উত্তর চাইছে ‘নতুন’ ও ‘পুরাতন’-এর সমন্বয়।

img-3

প্রসঙ্গত, একটা সময় পর্যন্ত তৃণমূল মানেই ‘দক্ষিণ কলকাতার দল’ মনে করা হত। এখনও মুখ্যমন্ত্রী থেকে মেয়র – সকলেই দক্ষিণের বিধায়ক। দলের প্রথম সারির নেতারাও মূলত দক্ষিণের। তৃণমূলের মধ্যে একটা কথা চালু রয়েছে যে, উত্তরের নেতা হয়ে দলে ‘বেশি উঁচুতে ওঠা যায় না’। রাজ্য ব্যাপী তৃণমূলের শক্তিবৃদ্ধির পরেও উত্তর কলকাতার নেতাদের মুখে সেই ‘আক্ষেপ’ শোনা যায়। তাই শনিবার রাত থেকে কলকাতায় যা হোর্ডিং দেখা যাচ্ছে, তার মধ্যে দক্ষিণকে উত্তরের ‘জবাব’ বলেও মনে করেছেন অনেকে।

কুণালবাবু অবশ্য এদিন জানিয়েছেন, “এই পোস্টারও দলের তরফে দেওয়া হয়নি। এটি দিয়েছে সিটিজেনস ফোরাম। যারা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের অনুপ্রেরণায় বিভিন্ন সামাজিক কাজকর্ম করে। আমি এখনও দেখিনি। কিন্তু এটা ভাল কথা, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নেতৃত্বে, অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের সেনাপতিত্বে তৃণমূল ছিল, আছে এবং থাকবে।”

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *