img-2

Bangla24x7 Desk : জামাইয়ের মাধ‌্যমে এসএসসি ও টেট দুর্নীতির ৫০ কোটি টাকা পাচার করেছিলেন পার্থ চট্টোপাধ‌্যায়।  চাঞ্চল‌্যকর তথ‌্য এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেটের হাতে। আরও তথ‌্য পেতে জেরা করা হয়েছে প্রাক্তন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ‌্যায়ের জামাই কল‌্যাণময় ভট্টাচার্যকে। ইডির দাবি , তাঁর বেশ কিছু উত্তর সন্তোষজনক নয়। পরবর্তীকালে ফের তাঁকে ইডি জেরা করতে পারে।

পার্থ চট্টোপাধ‌্যায়ের মেয়ে-জামাই আমেরিকায় থাকলেও তাঁদের মাধ‌্যমেই তিনি এসএসসি ও টেট দুর্নীতির বিপুল টাকা সরিয়েছিলেন বলে অভিযোগ। কল‌্যাণময় ভট্টাচার্যর দাবি অনুযায়ী , তাঁর শ্বশুরের নির্দেশ অনুযায়ী তিনি টাকা সরানোর জন‌্য বেছে নিয়েছিলেন নিজের মামার বাড়ির লোকেদের। পার্থ বাবুর নির্দেশে বেশ কয়েক দফায় তিনি ওই ৫০ কোটি টাকা পাঠান মামা কৃষ্ণচন্দ্র অধিকারীকে। যদিও ইডির কাছে কৃষ্ণচন্দ্র বাবুর দাবি, ভাগ্নে কল‌্যাণময় যেহেতু প্রাক্তন মন্ত্রীর জামাই , তাই তাঁর পরিকল্পনা তিনি মেনে নিতে বাধ‌্য হন। ভাগ্নেই তাঁকে পুরো টাকা পাঠান। তাঁর মাধ‌্যমে ওই দুর্নীতির টাকা লগ্নি হয় পিংলার স্কুলে।

img-3

ইডির অভিযোগ, এখনও পর্যন্ত এসএসসি ও টেট দুর্নীতির ৫০ কোটি কালো টাকা পিংলার স্কুল ও পার্থর স্ত্রীর নামে তৈরি একটি ট্রাস্টের মাধ‌্যমে সাদা করা হয়েছে। কল‌্যাণময় ইডির কাছে দাবি করেছেন যে , তিনি ও তাঁর স্ত্রী দু’জনেই চাকরিজীবী। চাকরি করেন আমেরিকার একটি আইটি সংস্থায়। তাঁরা ডলারে বেতন পেলেও বিপুল টাকা লগ্নি করার মতো সামর্থ তাঁদের নেই। ইডির দাবি , কল‌্যাণময় জানতেন যে, ওই টাকা দুর্নীতির। কিন্তু শ্বশুর পার্থ বাবুর নির্দেশ মানতে বাধ‌্য হন তিনি। আবার ওই ট্রাস্টের মাধ‌্যমে ওই টাকা অন‌্য কয়েকটি সংস্থায় পাঠানো হয়। ওই সংস্থার কর্ণধার কৃষ্ণচন্দ্রবাবুর স্ত্রী, শাশুড়ি, দাদার মতো আত্মীয়রা। প্রাথমিকভাবে প্রত্যেকের দাবি , ওই টাকা যে এসএসসি বা টেট দুর্নীতির, তা তাঁরা জানতেন না। যদিও ইডি আধিকারিকরা ওই দাবি মানতে রাজি নন। পিংলার ওই স্কুলের চেয়ারম‌্যান ছিলেন কল‌্যাণময় ভট্টাচার্য। তিনি নিজেও ওই স্কুলে টাকা লগ্নি করেছিলেন।

মামা কৃষ্ণচন্দ্র অধিকারী প্রত্যেক মাসে মোটা বেতন পেতেন। তাঁর দাবি , ভাগ্নে কল‌্যাণময় তাঁকে ১৫ কোটি টাকা পাঠিয়েছিলেন স্কুলের বাড়ি তৈরির জন‌্য। ভাগ্নের কথা অনুসারে কাজ বা টাকা লগ্নি করতে বলতেন, তা-ই তিনি করতেন। যদিও কল‌্যাণময় আঙুল তুলেছেন শ্বশুরের দিকেই।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *