img-2

Bangla24x7 Desk : ভোট আসতেই ন্যাশানাল হেরাল্ড মামলায় সোনিয়া ও রাহুলের বিরুদ্ধে ফের সক্রিয় হতে পারে ইডি। গান্ধী পরিবারের দুই সদস্যের বিরুদ্ধে ৪-৫ কোটি টাকা ভুয়ো সংস্থার মাধ্যমে লেনদেন করার অভিযোগ পাওয়া গিয়েছে বলে এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট সূত্রে খবর। তলব করা হতে পারে নবনির্বাচিত কংগ্রেস সভাপতি মল্লিকার্জুন খাড়গেকে। দুই রাজ্যের ভোটের মুখে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থার সক্রিয় হয়ে ওঠার পিছনে রাজনৈতিক প্রতিহিংসা দেখছে কংগ্রেস। যদিও ইডির তরফে এই তিন শীর্ষ নেতৃত্বের কাছে এখনও কোনও চিঠি আসেনি বলে কংগ্রেসের তরফে জানানো হয়েছে।

img-3

সূত্র মারফত জানা গিয়েছে, সন্দেহজনক এই আর্থিক লেনদেন নিয়ে একাধিক তথ্য প্রমাণ এসেছে ইডির হাতে। ওই তথ্য প্রমাণের ভিত্তিতেই সোনিয়া গান্ধী , রাহুল গান্ধী-সহ একাধিক কংগ্রেস নেতাকে তলব করা হতে পারে। প্রয়োজনে মুখোমুখি বসিয়েও জেরা করা হতে পারে ইয়ং ইন্ডিয়ান সংবাদপত্রের সঙ্গে যুক্ত কংগ্রেস কর্মীদের। মাস কয়েক আগেই সোনিয়া গান্ধী ও রাহুল গান্ধীকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তলব করেছিল ইডি। বেশ কয়েক দফায় ঘণ্টার পর ঘণ্টা মা ও ছেলেকে জেরা করা হয়। প্রতিবাদে রাস্তায় নামে কংগ্রেস। দেশজুড়ে প্রতিবাদ করা হয় কংগ্রেসের তরফে।

গত আগস্ট মাসেই ইডি দিল্লিতে ইয়ং ইন্ডিয়ান প্রাইভেট লিমিটেডের অফিসে তল্লাশি চালায়। কংগ্রেস সাংসদ তথা বর্তমান কংগ্রেসের জাতীয় সভাপতি মল্লিকার্জুন খাড়গের উপস্থিতিতেই প্রায় ছ’ঘণ্টা ধরে হেরাল্ড হাউস বিল্ডিংয়ে অবস্থিত ইয়ং ইন্ডিয়ান সংস্থার অফিসে তল্লাশি চলে। আগস্ট মাসেই ন্যাশনাল হেরাল্ড মামলায় প্রথমে তলব করা হয় রাহুল গান্ধীকে। টানা ৫দিন ধরে প্রায় ৫০ ঘণ্টা জেরা করা হয় রাহুল গান্ধীকে। সেই সময় করোনা আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন সনিয়া গান্ধী। তিনি সুস্থ হওয়ার পর তিন দফায় জেরা করা হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *