img-2

Bangla24x7 Desk : আটবার দলবদল। তৃণমূলে থাকাকালীন নতুন করে বিজেপি যোগের সম্ভাবনা। সবমিলিয়ে সুবল ভৌমিকের কাজে এবং ভূমিকায় অসন্তুষ্ট তৃণমূলের শীর্ষ নেতৃত্ব। আর সেই কারণেই এবার তাঁকে ত্রিপুরা তৃণমূলের সভাপতির পথ থেকে অপসারিত করা হল। আপাতত ত্রিপুরার দায়িত্ব সামলাবেন রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় এবং সুস্মিতা দেব।

img-3

বুধবার রাজ্যের শাসকদলের অফিসিয়াল টুইটার হ্যান্ডেল থেকে এ খবর নিশ্চিত করা হয়েছে। চলতি বছর এপ্রিলেই তাঁকে ত্রিপুরা তৃণমূলের রাজ্য সভাপতি পদে আনা হয়েছিল। কিন্তু তার পর থেকে একাধিকবার তাঁর কাজ নিয়ে অসন্তোষ প্রকাশ করেছে শীর্ষ নেতৃত্ব। ২০২১ সালে ত্রিপুরায় পুর নির্বাচনী লড়াইয়ে নেমেছিল ঘাসফুল শিবির। সেই পুরভোটে বাম-কংগ্রেসকে টপকে শতাংশের বিচারে দ্বিতীয় স্থান দখল করে তৃণমূল। কিন্তু এ বছর বিধানসভা উপনির্বাচনে কার্যত মুখ থুবড়ে পড়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের দল। ত্রিপুরার চার বিধানসভা কেন্দ্রে জামানত জব্দ হন তৃণমূল প্রার্থীদের।

সুবল ভৌমিকের রাজনৈতিক রংবদল রীতিমতো চোখে পড়ার মতো। কংগ্রেস থেকে প্রথমবার তৃণমূলে যোগ দিয়েছিলেন তিনি। তারপর ফের কংগ্রেসে ফেরেন। হাত শিবিরের সঙ্গে সম্পর্কে ইতি টেনে এরপর ত্রিপুরা গ্রামীণ কংগ্রেসে যোগ দেন। সেখানেও বেশিদিন থাকতে পারেননি। নাম লেখান পদ্মশিবিরে। কিন্তু অসন্তোষের জেরে বিজেপি থেকেও বহিষ্কৃত করা হয় তাঁকে। আবারও কংগ্রেসের শরণাপন্ন হন সুবল। তবে একাধিক দায়িত্বের প্রতিশ্রুতি পাওয়ায় ফের তৃণমূলে চলে যান তিনি। কিন্তু সে সব দায়িত্ব সঠিক ভাবে পালন করে ব্যর্থ হন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *