Bangla24x7 Desk : দেশজুড়ে চলছে সপ্তম দফার নির্বাচন। সেই সঙ্গে উপনির্বাচনও চলছে। এদিন বরানগর বিধানসভা আসনে চলছে ভোট। শনিবার সকালে বুথে বুথে যান বামপ্রার্থী তন্ময় ভট্টাচার্য। অভিযোগ, এক বুথে থাকা তৃণমূল কাউন্সিলর তন্ময়কে চোর বলে তোপ দাগেন। স্বাভাবিকভাবেই মেজাজ হারান বাম প্রার্থী। বরানগর উপ নির্বাচনের প্রার্থী তথা বর্ষীয়ান বাম নেতাকে এদিন প্রথমে গো ব্যাক স্লোগান দেওয়া হয় বলে অভিযোগ। পরে তাঁকে ধাক্কা মেরে ঠেলে দেওয়া হয়। হাত ধরে টানাটানি করার ছবিও প্রকাশ্যে এসেছে। প্রার্থীর দাবি, বুথে বুথে গিয়ে এজেন্টদের সঙ্গে কথা বলছিলেন তিনি। আচমকা তাঁকে সরে যেতে বলা হয়, ধমকও দেওয়া হয়। তৃণমূলের অভিযোগ, ভোটারদের প্রভাবিত করছিলেন বাম প্রার্থী।

লোকসভা নির্বাচনের মাঝে হিটলার নামে এক ব্যক্তিকে ‘মার’তে দেখা গিয়েছিল মহম্মদ সেলিমকে। এবার একই ভূমিকায় দেখা গেল তন্ময় ভট্টাচার্যকে। তিনি জ্যোতিপ্রিয় মল্লিকদের প্রসঙ্গ তুলে পালটা দেন। এর পরই দু’পক্ষের মধ্যে প্রবল বচসা শুরু হয়। অভিযোগ, সেই সময় কাউন্সিলর ও তাঁর সঙ্গে থাকা এক যুবক তন্ময় ভট্টাচার্যকে ঘুষি মারে। এতেই পরিস্থিতি আরও উত্তপ্ত হয়ে ওঠে। পালটা ঘাড় ধাক্কা দেন তন্ময়। দু হাতে দুই যুবকের কলার চেপে ধরেন। রীতিমতো ‘দাবাং’ মেজাজে ধরা দেন তিনি। সব মিলিয়ে পরিস্থিতি জটিল হয়ে ওঠে। ঘটনাস্থলে যায় পুলিশ। বরানগরের বিকেসি কলেজে এই ধস্তাধস্তির ছবি প্রকাশ্যে এসেছে। তিন-চারজনের সঙ্গে প্রথমে বচসা ও পরে হাতাহাতি চলে।

তন্ময় ভট্টাচার্যের দাবি, তাঁকে দেখে নেওয়ার হুমকি দেন তৃণমূল নেতারা। পাল্টা তিনিও জবাব দেন তৃণমূল নেতাদের। তন্ময় বলেন, “সকাল থেকে সব বুথ পরিদর্শনে যাচ্ছি। এখানেও এসেছিলাম। এজেন্টের সঙ্গে কথা বলে বেরিয়ে যাচ্ছিলাম। হঠাৎ গো ব্যাক বলে চীৎকার করতে থাকে।” তাঁর দাবি, পুরসভা ভোটে তৃণমূল রিগিং করে জিতেছে। এবার সেই সুযোগ পাচ্ছে না। তাই সিপিএম এজেন্টকে ধমক দেওয়া হচ্ছে। তবে ছেড়ে কথা বলছেন না তন্ময় ভট্টাচার্যও। তিনি বলেন, “তৃণমূলের জোর কমছে। ওদেরও ঘুষির জোর কমছে। ওরা আমাকে বলেছে, ২ মিনিট লাগবে বুঝে নিতে। আমিও বলেছি, তোমার যদি ২ মিনিট লাগে, আমারও ২ সেকেন্ড সময় লাগবে।” উল্লেখ্য, এদিন লোকসভা ভোটের পাশাপাশি বরানগর বিধানসভা আসনে উপ নির্বাচন চলছে।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *